Breaking News
Home / খবর / রাম মন্দির নির্মাণে কণামাত্র জনস্বার্থ নেই — প্রভাস ঘোষ

রাম মন্দির নির্মাণে কণামাত্র জনস্বার্থ নেই — প্রভাস ঘোষ

এসইউসিআই (কমিউনিস্ট) দলের সাধারণ সম্পাদক প্রভাস ঘোষ  অযোধ‍্যায় রাম মন্দির নির্মাণ উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রীর দ্বারা ভূমিপূজার সাড়ম্বর ব‍্যয়বহুল অনুষ্ঠান সম্পর্কে এক বিবৃতিতে আজ ৬ আগস্ট ২০২০ বলেন–

এস ইড সি আই (কমিউনিস্ট)–এর সাধারণ সম্পাদক প্রভাস ঘোষ অযোধ্যায় রামমন্দির নির্মাণ উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রীর ভূমিপূজার সাড়ম্বর ব্যয়বহুল অনুষ্ঠান সম্পর্কে ৬ আগস্ট এক বিবৃতিতে বলেন,

চিকিৎসার সুযোগ না পেয়ে হাজার হাজার দেশবাসী যখন করোনা সংক্রমণে মারা যাচ্ছে, লক্ষ লক্ষ কর্মচ্যুত বেকার, পরিযায়ী শ্রমিক ও গরিব কৃষক সরকারি সাহায্য থেকে বঞ্চিত হয়ে অনাহারে মারা যাচ্ছে না হয় আত্মহত্যা করছে তখন সরকারের প্রত্যক্ষ মদতে অযোধ্যায় রামমন্দির নির্মাণের জন্য বিপুল ব্যয়ে যেভাবে বিশাল রাজকীয় আড়ম্বরে ভূমিপূজার ব্যবস্থা করা হল এবং স্বয়ং প্রধানমন্ত্রী সেখানে শিলান্যাস করে তাকে বৈধতা দিলেন, সভ্য দুনিয়ায় তা কল্পনার অতীত৷

আমরা স্মরণ করিয়ে দিতে চাই, শুধুমাত্র ভোটের স্বার্থে কংগ্রেসের প্রধানমন্ত্রী রাজীব গান্ধী যখন বাবরি মসজিদের বন্ধ দরজা খুলে রামমন্দিরের শিলান্যাস করেছিলেন, যার পাল্টা হিসাবে আরএসএস–বিজেপি মসজিদকেই ধ্বংস করেছিল, আমরা দুয়েরই নিন্দা ও প্রতিবাদ করেছিলাম৷ আমরা দেখিয়েছিলাম, বাবরি মসজিদের স্থানটিকে রামের জন্মস্থান রূপে দাবি করা চলে না, ইতিহাসে এরকম কোনও উল্লেখ নেই৷ বাল্মীকি ও তুলসীদাসের রামায়ণে উল্লেখ নেই, হিন্দু ধর্মের শীর্ষ প্রচারক চৈতন্য, রামকৃষ্ণ ও বিবেকানন্দ কখনও এ দাবি তোলেননি৷ বিবেকানন্দ এমনকি রাম ও কৃষ্ণের বাস্তব অস্তিত্ব নিয়েই সংশয় ব্যক্ত করেছিলেন৷ কলকাতায় বহু মানুষ যখন প্লেগ মহামারিতে আক্রান্ত  হয়, বিবেকানন্দ তাদের চিকিৎসার অর্থ জোগানোর জন্য বেলুড় মঠের জমি বিক্রিরও প্রস্তাব দিয়েছিলেন৷ হিন্দুত্বের জিগির তুলে আরএসএস–বিজেপি ঠিক উল্টো কাজই করে গণতান্ত্রিক পরিবেশ ও জনগণের ঐক্য ধ্বংসের কাজ চালিয়ে যাচ্ছে৷ রাম মন্দির নির্মাণের সাথে জনগণের কণামাত্র স্বার্থনেই৷ সবটাই আরএসএস–বিজেপির ধর্মীয় সাম্প্রদায়িক হীন পরিকল্পনা৷

বস্তুত হিন্দুত্বের জিগির তুলে দেশে সাম্প্রদায়িক বিভেদের আগুন জ্বালিয়ে তাকে ভোটে ব্যবহার করা, নবজাগরণের বিজ্ঞানধর্মী যুক্তিবাদী মনন ধ্বংস করে উগ্র জাতিবাদের বিষবাষ্প ছড়িয়ে সমাজে ফ্যাসিবাদী মানসিকতা তৈরি ও তার প্রসার ঘটানোই আরএসএস–বিজেপির লক্ষ্য৷ আমরা গভীর উদ্বেগ থেকেই এর প্রতিবাদ করছি৷ আমরা জানি দেশের গণতান্ত্রিক চেতনাসম্পন্ন মানুষজন ও বামপন্থীরা এসবের বিরোধী এবং তারাও যথেষ্ট উদ্বিগ্ন৷ আমরা সকলকেই প্রতিবাদে সামিল হওয়ার জন্য আবেদন জানাচ্ছি৷