Breaking News
Home / খবর / বাংলাদেশে খালেদা জিয়ার গ্রেপ্তার প্রসঙ্গে বাসদ (মার্কসবাদী)–র বিবৃতি

বাংলাদেশে খালেদা জিয়ার গ্রেপ্তার প্রসঙ্গে বাসদ (মার্কসবাদী)–র বিবৃতি

70 year 27 Issue, 23 Feb 2018

বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল (মার্কসবাদী)–র সাধারণ সম্পাদক কমরেড মুবিনুল হায়দার চৌধুরী ৯ ফেব্রুয়ারি এক বিবৃতিতে জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় খালেদা জিয়ার সাজা প্রসঙ্গে বলেন –

‘‘স্বৈরতান্ত্রিক ও দুর্নীতিগ্রস্ত শাসন চালিয়ে অনির্বাচিত আওয়ামী লীগ সরকার যখন রাজনৈতিক প্রতিপক্ষের দুর্নীতির বিচারে অতি তৎপর হয়, তখন স্বাভাবিকভাবেই এর উদ্দেশ্য সম্পর্কে জনমনে সন্দেহ জাগে৷ সম্প্রতি বিচারবিভাগের ওপর সরকারি নিয়ন্ত্রণ যেভাবে পাকাপোক্ত করা হয়েছে তাতে সন্দেহ আরও ঘনীভূত হয়েছে৷ ২০১৪–র ৫ জানুয়ারির মতো আরেকটি প্রতিদ্বন্দ্বিতাহীন প্রহসনের নির্বাচন করতে সরকারের রাজনৈতিক পরিকল্পনা বাস্তবায়নে এই রায় ব্যবহৃত হবে– তা মনে করার যথেষ্ট কারণ আছে৷’’

বিবৃতিতে আরও বলা হয়, ‘‘বিএনপি আমল সহ প্রত্যেকটি সরকারের সময়েই শীর্ষ মহলের যোগসাজশে দুর্নীতি ও লুটপাট হয়েছে– এ কথা মানুষ অভিজ্ঞতা থেকেই বিশ্বাস করে৷ আওয়ামী লীগ সরকারের গত ৯ বছরের শাসনামলে দলীয় লোকদের যোগসাজশে ব্যাঙ্ক–শেয়ারবাজার লুট, অর্থ পাচার, বিদ্যুৎ খাত সহ বড় বড় উন্নয়ন প্রকল্পে হাজার হাজার কোটি টাকার দুর্নীতি হয়েছে৷ এ সম্পর্কে ওঠা অভিযোগগুলোর কোনওটিরই সুষ্ঠু তদন্ত–বিচার–শাস্তি হয়নি, বরং অপরাধীদের প্রশ্রয় দেওয়া হয়েছে৷ সরকারের সহযোগী হওয়ায় মহাদুর্নীতিবাজ এরশাদের মামলাগুলোরও কোনও অগ্রগতি নেই৷ ফলে দুর্নীতিবাজদের বিচারে সরকার আন্তরিক– এ কথা মনে করার কোনও কারণ নেই৷ তত্ত্বাবধায়ক সরকারের আমলে শেখ হাসিনার নামে দায়ের করা মামলাগুলো প্রত্যাহার করে খালেদা জিয়ার মামলা চালানোর ঘটনাতেই সরকারের রাজনৈতিক উদ্দেশ্য ও নৈতিক অবস্থান পরিষ্কার হয়ে যায়৷’’

কমরেড মুবিনুল হায়দার চৌধুরী বলেন, ‘‘বর্তমান যুগে বুর্জোয়া ব্যবস্থা আপাদমস্তক দুর্নীতিগ্রস্ত৷ শাসকগোষ্ঠী পরস্পরের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ তোলে প্রতিপক্ষকে ঘায়েল করার উদ্দেশ্যে, দুর্নীতিগ্রস্ত ব্যবস্থার অবসান প্রকৃতপক্ষে এরা কেউই চায় না৷ ফলে আজ একদিকে দুর্নীতিবাজ বুর্জোয়া দলগুলোকে প্রত্যাখ্যান করা দরকার, অন্যদিকে বিরোধী শক্তিকে নির্মূল করে দমনমূলক ফ্যাসিবাদী শাসন দীর্ঘায়িত করার চক্রান্তের বিরুদ্ধে সোচ্চার হওয়া প্রয়োজন৷’’