Home / আন্দোলনের খবর / পার্টি কংগ্রেসকে অভিনন্দন নানা দেশের কমিউনিস্ট সংগঠনের

পার্টি কংগ্রেসকে অভিনন্দন নানা দেশের কমিউনিস্ট সংগঠনের

২১–২৬ নভেম্বর এস ইউ সি আই (সি)–র তৃতীয় পার্টি কংগ্রেসের সাফল্য কামনায় বিপ্লবী অভিনন্দন জানিয়ে বার্তা প্রেরণ করেছে নানা দেশের ভ্রাতৃপ্রতিম কমিউনিস্ট সংগঠনগুলি৷

শ্রীলঙ্কা : প্রতিবেশী শ্রীলঙ্কার ‘সিলোন কমিউনিস্ট ইউনিটি সেন্টার’–এর পক্ষ থেকে পাঠানো বার্তায় বলা হয়েছে, ‘‘বিশ্ব জুড়ে শ্রেণিহীন সমাজ প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে ভারতে শ্রমিক শ্রেণির সমাজতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করতে বিশেষ করে দলের কর্মীদের মতাদর্শ, সংগঠন এবং কমিউনিস্ট নৈতিকতার মান উন্নয়নে এস ইউ সি আই (সি)–র তৃতীয় পার্টি কংগ্রেসকে বিপ্লবী অভিনন্দন জানাই৷’’ ব্যক্তিস্বাধীনতার নামে চূড়ান্ত স্বেচ্ছাচার এবং সামাজিক দায়িত্ববোধের যে অভাব আজ যুবসমাজকে গ্রাস করছে, এই বার্তায় তাঁরা সে বিষয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন, পাশাপাশি সমাজতান্ত্রিক বিপ্লবের লক্ষ্যে নিবেদিতপ্রাণ কর্মীদের মধ্যে কমিউনিস্ট নৈতিকতার অভাবের সমস্যাটি তুলে ধরেছেন৷ বার্তায় তাঁরা বলেছেন, ‘‘বিপ্লবী দলগুলির ব্যর্থতার পিছনে একটি গুরুত্বপূর্ণ কারণ হল মার্কসবাদী নৈতিকতার বিষয়টি উপেক্ষিত হওয়া৷ দমনমূলক স্বৈরাচার, শোষণ ও অবৈজ্ঞানিক চিন্তাধারার বিরোধী মার্কসবাদ হল বিজ্ঞানসম্মত ও বৈপ্লবিক এমন একটি জীবনধারা, যার সর্বদিক ব্যাপ্ত করে রয়েছে গণতান্ত্রিক কেন্দ্রিকতা৷ এ হল বর্তমান সময়কে সঠিক ভাবে বোঝার ও সমস্ত ধরনের শোষণ থেকে মুক্ত উন্নত ভবিষ্যৎ গড়ে তোলার পদ্ধতি৷ এর সঙ্গে যুক্ত রয়েছে উন্নত নৈতিকতা ও মূল্যবোধ৷ ফলে বিপ্লবী চেতনাসম্পন্ন কর্মী ও সুশৃঙ্খল সংগঠনের পাশাপাশি একটি কমিউনিস্ট পার্টির প্রয়োজন উন্নততর আদর্শগত সংগ্রামে লিপ্ত হওয়া৷’’

বার্তায় তাঁরা বলেন, ‘‘এ কথা আমরা জানি যে, অন্যান্য মার্কসবাদী চিন্তানায়কদের পাশাপাশি এস ইউ সি আই (সি)–র ভিত্তিতে রয়েছে দলের প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক কমরেড শিবদাস ঘোষের চিন্তাধারা৷ আমরা অনুভব করি, এ দেশে একটি বিপ্লবী পার্টি গড়ে তোলার ক্ষেত্রেও তাঁর চিন্তাধারা সমানভাবে গুরুত্বপূর্ণ এবং প্রেরণাদায়ক৷ ফলে সিলোন কমিউনিস্ট ইউনিটি সেন্টার গড়ে তোলার ক্ষেত্রে কমরেড শিবদাস ঘোষের চিন্তাধারা ও তাঁর অবদান গুরুত্ব দিয়ে চর্চা করা হয়েছে৷’’

শ্রীলঙ্কার বর্তমান রাজনৈতিক টালমাটাল অবস্থা এবং আরও কিছু অনিবার্য কারণে দলের পার্টি কংগ্রেসে যোগদান করতে সক্ষম না হওয়ায় তাঁরা দুঃখপ্রকাশ করেছেন৷

প্রতিনিধি অধিবেশন মঞ্চে বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল (মার্কসবাদী)-র সাধারণ সম্পাদক কমরেড মুবিনুল হায়দার চৌধুরীর হাতে রক্তপতাকা তুলে দিচ্ছেন কমরেড প্রভাস ঘোষ।

পাকিস্তান : এস ইউ সি আই (সি)–র আদর্শগত দৃষ্টিভঙ্গি, তার সংগ্রাম এবং আন্তর্জাতিক রাজনৈতিক পরিস্থিতি বিষয়ে অভিমতের সঙ্গে বহু ক্ষেত্রেই সহমত পোষণ করার কথা জানিয়ে আরও এক প্রতিবেশী দেশ পাকিস্তানের ‘কমিউনিস্ট পার্টি অফ পাকিস্তান’ এক বার্তায় দলের তৃতীয় পার্টি কংগ্রেসকে বিপ্লবী অভিনন্দন জানিয়েছে৷ ভারতের রাজনীতিতে এস ইউ সি আই (সি)–র ভূমিকা খুবই গুরুত্বপূর্ণ ও দৃষ্টান্তমূলক বলে তাঁরা মন্তব্য করেছেন৷

বার্তায় তাঁরা বলেছেন, ‘‘পুঁজিবাদী ব্যবস্থা আজ সম্পদের ব্যাপক কেন্দ্রীভবন ঘটানোর মাধ্যমে অধিকাংশ মানুষকে দারিদ্রের অন্ধকারে ঠেলে দিয়েছে৷ দুর্দশা ক্রমাগত বাড়ছে৷ ভারত ও পাকিস্তান উভয় দেশের শাসকরাই জনসাধারণের থেকে আদায় করা বিপুল অর্থ সেনাবাহিনীর পিছনে এবং যুদ্ধোন্মাদনা সৃষ্টিতে ব্যয় করে৷ এরা কেউই দেশের সাধারণ মানুষের জীবনমান উন্নয়নের জন্য কোনও পদক্ষেপ নেয় না, নেওয়া তাদের পক্ষে সম্ভবও নয়৷ এই পরিস্থিতির পরিবর্তন করতে কমিউনিস্টদেরই এগিয়ে আসতে হবে৷’’ এই কাজে উন্নততর রণনীতি প্রণয়নে এস ইউ সি আই (সি)–র তৃতীয় পার্টি কংগ্রেস সফল হবে এবং পাকিস্তানের কমিউনিস্ট আন্দোলনকেও সাহায্য করবে ও পথ দেখাবে বলে কমিউনিস্ট পার্টি অফ পাকিস্তানের বার্তায় আশা প্রকাশ করা হয়েছে৷

বার্তায় তাঁরা বলেছেন, ‘‘শত শত বছর ধরে ভারত ও পাকিস্তানের মানুষ একসাথে বসবাস করেছে, একই ঐতিহ্য, ভাষা, সংস্কৃতি ও চিন্তাধারা বহন করেছে৷ ফলে তারা একে অপরের সংগ্রামের দ্বারা প্রভাবিত ও অনুপ্রাণিত হয়৷ আমরা আশা করি, এই কংগ্রেস সমাজতান্ত্রিক সংগ্রামের ইতিহাসে এক নতুন অধ্যায় সংযোজিত করবে৷’’

কানাডা : বিশ্ব জুড়ে তীব্র ও বর্বর শোষণ, নিপীড়ন, লুটপাট, ফ্যাসিবাদ ও যুদ্ধের এই সময়ে অনুষ্ঠিত এস ইউ সি আই (সি)–র তৃতীয় পার্টি কংগ্রেসের উদ্দেশে শুভেচ্ছাবার্তা ও অভিনন্দন পাঠিয়েছে কানাডার ‘কমিউনিস্ট রিকন্সট্রাকশন কানাডা’৷

প্রকাশ্য সমাবেশ। ভাষণ শুনতে মগ্ন শ্রমজীবী মানুষ

বিশ্ব কমিউনিস্ট আন্দোলনে এস ইউ সি আই (সি)–র ভূমিকা প্রসঙ্গে বার্তায় তাঁরা জানিয়েছেন, ‘‘১৯৫৬ সালে সোভিয়েত কমিউনিস্ট পার্টির ২০তম কংগ্রেসে ক্রুশ্চেভ যে সংশোধনবাদী লাইন নিয়েছিলেন, তা চিহ্ণিত করার ক্ষেত্রে আপনাদের দল গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নিয়েছিল৷ সংশোধনবাদের লাইন বাতিল করে এস ইউ সি আই (সি) মার্কস–এঙ্গেলস–লেনিন-স্ট্যালিন সহ মহান মার্কসবাদী চিন্তানায়কদের চিন্তাধারা ও কর্মপদ্ধতিকে ঊর্ধ্বে তুলে ধরে আন্তর্জাতিক কমিউনিস্ট আন্দোলনের অসংখ্য কর্মী ও সমর্থকদের সঠিক পথের দিশা দেখিয়েছে৷ আধুনিক সংশোধনবাদের বিরুদ্ধে আপনাদের তীব্র সংগ্রাম আন্তর্জাতিক কমিউনিস্ট আন্দোলনের ইতিহাসে অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ ঘটনা৷ পুঁজিবাদের পুনরুজ্জীবন ও সোভিয়েত ইউনিয়ন সহ অন্য সমাজতান্ত্রিক রাষ্ট্রগুলির পতনের মূলে রয়েছে এই সংশোধনবাদ৷’’

তাঁরা বলেন, ‘‘আদর্শগত, রাজনীতিগত ও সংগঠনগত ভাবে মার্কসবাদ–লেনিনবাদের ধ্যানধারণাকে কালোপযোগী ও সুসংহত করার মাধ্যমে আপনাদের দল ভারত ও গোটা বিশ্বে শ্রমিক শ্রেণির ঐক্যকে শক্তিশালী করার কাজ করে চলেছে৷ সর্বহারার আন্তর্জাতিকতাবাদের ক্ষেত্রে নিজেদের কার্যকলাপের মাধ্যমে আন্তর্জাতিক কমিউনিস্ট আন্দোলনের বিকাশে এস ইউ সি আই (সি) মহান অবদান রেখে চলেছে যা গোটা দুনিয়ার মানুষের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ৷’’

তুরস্ক : তুরস্কের ‘মার্কসিস্ট লেনিনিস্ট কমিউনিস্ট পার্টি’(এম এল কে পি)–র পক্ষ থেকে এস ইউ সি আই (সি)–র তৃতীয় পার্টি কংগ্রেস উপলক্ষে পাঠানো বার্তায় বলা হয়েছে, ‘‘মহান নভেম্বর বিপ্লবের শিক্ষা বুকে নিয়ে ২১ শতকে যে বিপ্লবী সংগ্রাম গড়ে তোলার লড়াইয়ে সামিল রয়েছে এস ইউ সি আই (সি), তার নেতা–কর্মীদের অভিনন্দন জানাই৷’’ বার্তায় তাঁরা বলেছেন, ‘‘আপনারা জানেন, মধ্যপ্রাচ্যে আমরা কী ভয়ানক ফ্যাসিবাদী ও সাম্রাজ্যবাদী যুদ্ধের মধ্যে দিন কাটাচ্ছি৷ তুরস্কে ফ্যাসিবাদী নেতা এরদোগান সমস্ত গণতান্ত্রিক ও বিপ্লবী আন্দোলনগুলির উপর আক্রমণ চালাচ্ছে৷ একটি মার্কসবাদী–লেনিনবাদী কমিউনিস্ট পার্টি হিসাবে এম এল কে পি তুরস্ক ও মধ্যপ্রাচ্যে সাম্রাজ্যবাদবিরোধী গণতান্ত্রিক বিপ্লব সফল করার লক্ষ্যে লড়ছে৷’’ তাঁদের এই লড়াইকে এস ইউ সি আই (সি)–র তৃতীয় পার্টি কংগ্রেস শক্তিশালী করবে, বার্তায় এই আশা ব্যক্ত করেছেন তাঁরা৷

উত্তর কোরিয়া : উত্তর কোরিয়ার ‘কোরিয়ান কমিটি ফর আফ্রো–এশিয়ান সলিডারিটি’ এস ইউ সি আই (সি)–র তৃতীয় পার্টি কংগ্রেস উপলক্ষে প্রেরিত বার্তায় দলের প্রতি উষ্ণ অভিনন্দন ব্যক্ত করেছে৷ এই পার্টি কংগ্রেস ভারত এবং অবশ্যই গোটা বিশ্বের শান্তিপ্রিয় প্রগতিশীল মানুষের আশা ও স্বার্থ পূরণ করবে বলে বার্তায় আশা প্রকাশ করা হয়েছে৷

নেদারল্যান্ডস : এস ইউ সি আই (সি)–র তৃতীয় পার্টি কংগ্রেসের সাফল্য কামনা করে ‘নিউ কমিউনিস্ট পার্টি অফ দি নেদারল্যান্ডস’–এর পক্ষ থেকে বার্তা প্রেরিত হয়েছে৷ কয়েক বছর আগে এদেশে এসে এস ইউ সি আই (সি)–র সঙ্গে আলাপ–আলোচনায় তাঁরা যে বহু শিক্ষণীয় বিষয় খুঁজে পেয়েছিলেন সে কথা উল্লেখ করে বার্তায় তাঁরা জানিয়েছেন, নেদারল্যান্ডসে একটি শক্তিশালী মার্কসবাদী–লেনিনবাদী দল গড়ে তুলতে গিয়ে কমিউনিস্ট আন্দোলনে নানা বিভ্রান্তি দূর করার জন্য আদর্শগত সংগ্রাম চালাচ্ছেন তাঁরা৷ এস ইউ সি আই থেকে দলের নাম পরিবর্তন করে এস ইউ সি আই (কমিউনিস্ট) করা প্রসঙ্গে তাঁদের মন্তব্য, কমিউনিস্ট দল ও সংশোধনবাদী সোস্যাল ডেমোক্রেটিক দলের মধ্যেকার পার্থক্য সুস্পষ্টভাবে তুলে ধরা অত্যন্ত প্রয়োজন৷ বিশেষত, ভারতের ক্ষেত্রে সিপিআই ও সিপিআই(এম)–এর মতো কমিউনিস্ট নামধারী দল থাকায় এই প্রয়োজন আরও বেশি৷

রাশিয়া : ‘কমিউনিস্টস অফ রাশিয়া’–র পক্ষ থেকে দলের তৃতীয় পার্টি কংগ্রেসের প্রতি সংহতি জ্ঞাপন করে বার্তা এসেছে৷ বার্তায় বলা হয়েছে, ‘‘অভ্যন্তরীণ ও আন্তর্জাতিক সংকটময় পরিস্থিতিতে যেভাবে আপনাদের এবং আমাদের কাজ করতে হচ্ছে, সে কথা মনে রেখে এস ইউ সি আই (সি)–র তৃতীয় পার্টি কংগ্রেসকে অভিনন্দন জানাই৷ আমরা নিশ্চিত যে, ধনী–দরিদ্রের এই বিপুল বৈষম্য ঘোচানোর পাশাপাশি অন্য সামাজিক সমস্যাগুলি সমাধানের ক্ষেত্রে মহান মার্কস–এঙ্গেলস–লেনিন-স্ট্যালিনের শিক্ষাই সবচেয়ে কার্যকর হাতিয়ার৷’’

রাশিয়ারই ‘অল ইউনিয়ন কমিউনিস্ট পার্টি অফ বলশেভিকস’–এর পক্ষ থেকেও বিপ্লবী অভিনন্দন জানিয়ে বার্তা প্রেরণ করা হয়েছে৷

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র : এস ইউ সি আই (সি)–র তৃতীয় পার্টি কংগ্রেস উপলক্ষে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ওয়ার্কার্স ওয়ার্ল্ড পার্টির পক্ষ থেকে সংহতি ও বিপ্লবী অভিনন্দন জানিয়ে বার্তা এসেছে৷ বার্তায় তাঁরা বলেছেন, ‘‘কমরেড প্রভাস ঘোষ যে প্রাক–কংগ্রেস আবেদন রেখেছেন তা থেকে, মার্কিন সাম্রাজ্যবাদের গর্ভে বসে আমাদের দেশের অভ্যন্তরীণ রাজনৈতিক পরিস্থিতির সঙ্গে ভারতের রাজনৈতিক পরিস্থিতির অনেক দিক থেকে সাদৃশ্য লক্ষ করছি৷ পুঁজিপতি শ্রেণি ট্রাম্প প্রশাসন ও রিপাবলিকান পার্টিকে কাজে লাগিয়ে নিপীড়িত মেহনতি মানুষের উপর সর্বাত্মক আক্রমণ নামিয়ে এনেছে৷ তাদের সমস্ত গণতান্ত্রিক অধিকার কেড়ে নেওয়া হচ্ছে যেগুলি দীর্ঘ আন্দোলনের মধ্য দিয়ে তারা অর্জন করেছিল৷ আমাদের দল সর্বহারা শ্রেণির স্বার্থে সর্বশক্তি নিয়োগ করে সংগ্রাম গড়ে তুলছে৷’’

বার্তায় তাঁরা বলেছেন, ‘‘আশার কথা, যুবক–যুবতীদের মধ্যে শ্রেণিচেতনা ও সাম্রাজ্যবাদবিরোধী চেতনা ক্রমাগত বৃদ্ধি পেতে দেখা যাচ্ছে৷ তারা বুঝতে পারছে পুঁজিবাদী ব্যবস্থা বহাল থাকলে তাদের ভবিষ্যৎ অন্ধকার৷’’

পরিশেষে তাঁরা বলেছেন, ‘‘সমাজতান্ত্রিক বিপ্লবের লক্ষ্যে এবং মার্কিন সাম্রাজ্যবাদের বিরুদ্ধে এস ইউ সি আই (সি)–র সংগ্রামের প্রতি আমরা সংহতি জ্ঞাপন করছি’’৷

(গণদাবী : ৭১ বর্ষ ১৬ সংখ্যা)