Home / খবর / পশ্চিমবঙ্গে ধর্মঘট সর্বাত্মক জনগণকে অভিনন্দন এস ইউ সি আই (সি)–র

পশ্চিমবঙ্গে ধর্মঘট সর্বাত্মক জনগণকে অভিনন্দন এস ইউ সি আই (সি)–র

সারা দেশেজুড়ে ধর্মঘটে স্বতঃস্ফূর্ত সাড়া

পশ্চিমবঙ্গে ধর্মঘট সর্বাত্মক  জনগণকে অভিনন্দন এস ইউ সি আই (সি)–র

এস ইউ সি আই (কমিউনিস্ট)–এর পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সম্পাদক চণ্ডীদাস ভট্টাচার্য ২৬ নভেম্বর এক বিবৃতিতে বলেন,

বিজেপি সরকারের শ্রম আইন, কৃষি সংস্কার, জনবিরোধী শিক্ষানীতি সহ চূড়ান্ত জনবিরোধী নীতিগুলির বিরুদ্ধে ১০টি কেন্দ্রীয় ট্রেড ইউনিয়ন ও ফেডারেশনগুলি ২৬ নভেম্বর যে সারা ভারতব্যাপী সাধারণ ধর্মঘটের ডাক দিয়েছিল তাকে সর্বাত্মক সমর্থন করেছে আমাদের দলের কেন্দ্রীয় কমিটি৷ এই ধর্মঘটকে সারা দেশে খেটে খাওয়া সাধারণ মানুষ, ছাত্র–যুব মহিলারা স্বতঃস্ফূর্তভাবে সমর্থন করেছেন৷ আজ হরিয়ানার কৃষকরা যেভাবে পুলিশের জলকামান, বাধাকে উপেক্ষা করে দিল্লির অভিমুখে তাঁদের অভিযান অব্যাহত রেখেছেন, পাঞ্জাব সহ অন্যান্য রাজ্যের শ্রমিক–কৃষকরাও ধর্মঘটের পক্ষে যেভাবে লড়াইয়ের মানসিকতা দেখিয়েছেন তা খুবই অভিনন্দনযোগ্য৷ এই ধর্মঘটে পশ্চিমবঙ্গের সর্বস্তরের সাধারণ মানুষও যে ভাবে সাড়া দিয়েছেন তার জন্য এ রাজ্যের জনগণকে অভিনন্দন জানাচ্ছি৷

আজকের ধর্মঘটে ভারি শিল্প, কয়লাখনি, চটকল, চা বাগান শ্রমিকরা সহ অসংগঠিত ক্ষেত্রের বিপুল সংখ্যক কর্মী, আশা–আইসিডিএস সহ স্কিম ওয়ার্কাররা যেমন ব্যাপকভাবে সামিল হয়েছেন, একই ভাবে সামিল হয়েছে ভ্যান–রিকশ–মোটর ভ্যান, অটো–টোটো সহ পরিবহণ এবং রেল কর্মীরা৷ ছাত্র–যুব–মহিলারাও তাঁদের নিজস্ব দাবি নিয়ে সামিল হয়েছিলেন৷ ব্যাঙ্ক, বীমা ক্ষেত্রে এই ধর্মঘটের প্রভাব ছিল সর্বাত্মক৷ হাওড়া এবং শিয়ালদহ শাখায় পিকেটিং–এর ফলে রেল চলাচলও ব্যাহত হয়েছে৷ কলকাতা সহ রাজ্যের সর্বত্র দোকানপাট ছিল সম্পূর্ণ বন্ধ৷

এস ইউ সি আই (সি) দল এবং তার গণসংগঠনের কর্মীরা এই ধর্মঘট সফল করার জন্য বিগত প্রায় একমাস ধরে প্রচার চালিয়েছেন৷ আজও তাঁরা নানা জায়গায় পিকেটিং করেন৷ কলকাতার এসপ্লানেড, কোচবিহার, পূর্ব মেদিনীপুরের তমলুকে পুলিশ আমাদের কর্মীদের উপর লাঠিচার্জ করে৷ধর্মঘটের প্রচার এবং পিকেটিং করতে গিয়ে পশ্চিমবঙ্গে ২০৫ জন এস ইউ সি আই (সি) কর্মী গ্রেপ্তার হয়েছেন৷ পুলিশি আক্রমণে আহত হয়েছেন ৩৬ জন ৷

এই ধর্মঘট দেখিয়ে দিল বিজেপি সরকারের জনবিরোধী নীতি প্রত্যাহারে তাদের বাধ্য করতে পারে একমাত্র ঐক্যবদ্ধ বাম–গণতান্ত্রিক আন্দোলন৷ আরও দেখাল, নির্বাচনে সরকার পরিবর্তন কোনও বিকল্প নয়৷ শক্তিশালী গণআন্দোলনই হল একমাত্র বিকল্প৷ এই আন্দোলনকে আরও বৃহত্তর রূপে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য জনগণের কাছে আবেদন জানাচ্ছি৷

সংবাদদাতা

রবি বসু

অফিস সম্পাদক

 

শ্যামবাজার
জয়নগর
হাজরা
হাবরা