Home / খবর / ঘূর্ণিঝড় দুর্গত এলাকায় উপযুক্ত ত্রাণের দাবি এস ইউ সি আই (সি)–র

ঘূর্ণিঝড় দুর্গত এলাকায় উপযুক্ত ত্রাণের দাবি এস ইউ সি আই (সি)–র

প্রবল সামুদ্রিক ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের তাণ্ডবে বিপর্যস্ত এলাকার মানুষের ত্রাণ ও পুনর্বাসনের দাবিতে মুখ্যমন্ত্রীর কাছে স্মারকলিপি দিল এস ইউ সি আই (সি)৷ ১১ নভেম্বর মুখ্যমন্ত্রী কাকদ্বীপে গেলে দলের পক্ষ থেকে একটি স্মারকলিপি মন্ত্রী মন্টুরাম পাখিরার মাধ্যমে মুখ্যমন্ত্রীর হাতে তুলে দেওয়া হয়৷ স্মারকলিপিতে দলের দক্ষিণ ২৪ পরগণা জেলা সম্পাদক কমরেড দেবপ্রসাদ সরকার জানান–  গত ৮–৯ নভেম্বরের ভয়ঙ্কর ঘূর্ণিঝড় বুলবুল ও মুষলধারে বৃষ্টিতে জেলার সাগর, নামখানা, কাকদ্বীপ, পাথরপ্রতিমা, কুলতলি, মথুরাপুর ১ ও ২, মন্দিরবাজার, কুলপি, জয়নগর ১ ও ২, ডায়মণ্ডহারবার, মগরাহাট ১ ও ২, বাসন্তী, গোসাবা, ক্যানিং ১ ও ২ ইত্যাদি ব্লকে চাষ ও ঘরবাড়ির ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে৷ বিশেষ করে ধানের জমি ও পান চাষের ক্ষতি হয়েছে ভয়াবহ৷ এছাড়া কয়েক হাজার মাটির বাড়ির আংশিক বা পরিপূর্ণ ক্ষতি হয়েছে৷ এই পরিস্থিতিতে রাজ্য সরকারের তরফ থেকে হাজার হাজার ক্ষতিগ্রস্ত চাষি ও বাড়িহারা মানুষের কাছে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেওয়ার জন্য দলের পক্ষ থেকে দাবি জানানো হয়৷

ওই দিন দলের পূর্ব মেদিনীপুর জেলা কমিটির পক্ষ থেকে জেলার অতিরিক্ত জেলাশাসক (সাধারণ)–এর কাছে  স্মারকলিপি পেশ করা হয়৷ স্মারকলিপিতে দাবি করা হয়, পূর্ব মেদিনীপুর জেলায় ক্ষতিগ্রস্ত ব্লকের ভেঙে যাওয়া বাড়িগুলি পুনর্নির্মাণের জন্য প্রয়োজনীয় ক্ষতিপূরণ দিতে হবে, ক্ষতিগ্রস্ত এলাকায় মেডিকেল টিম পাঠিয়ে দুর্গতদের চিকিৎসার বন্দোবস্ত করতে হবে, স্বাভাবিক অবস্থা না ফেরা পর্যন্ত দুর্গতদের রান্না করা খাবার দেওয়ার বন্দোবস্ত, ঝড়ে ক্ষতিগ্রস্ত আমন ধান, পান, ফুল, সবজি চাষিদের উপযুক্ত ক্ষতিপূরণ প্রদান, বিমা কোম্পানির ক্ষতিপূরণ পাওয়ার ব্যবস্থা, ক্ষতিগ্রস্ত মৌজাগুলির জলনিকাশি ব্যবস্থা, রাস্তাগুলি অবিলম্বে সংস্কার করতে হবে৷ প্রতিনিধি দলে ছিলেন দলের জেলা সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্য নন্দ পাত্র, জেলা কমিটির সদস্য নারায়ণ চন্দ্র নায়ক,  জ্ঞানানন্দ রায় প্রমুখ৷ অতিরিক্ত জেলাশাসক দাবিগুলির যৌক্তিকতা স্বীকার করে উপযুক্ত ব্যবস্থা গ্রহণের আশ্বাস দেন৷

উত্তর ২৪ পরগণার বসিরহাট, সন্দেশখালি সহ নানা এলাকায় ঝড়ে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়৷ সাথে সাথেই দুর্গতদের পাশে দাঁড়ান দলের কর্মীরা৷ মৃতদের স্মরণে শোকবেদি স্থাপন করে শ্রদ্ধা জানানো হয়৷

(গণদাবী : ৭২ বর্ষ ১৪ সংখ্যা)