Breaking News
Home / আন্দোলনের খবর / কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মচারী আন্দোলনে গুরুত্বপূর্ণ দাবি আদায়

কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মচারী আন্দোলনে গুরুত্বপূর্ণ দাবি আদায়

ক্যালকাটা ইউনিভার্সিটি এমপ্লয়িজ ইউনিয়নের নেতৃত্বে অনশন আন্দোলনের মধ্য দিয়ে অবশেষে কর্মচারীদের বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ দাবি আদায় হল৷ এআইইউটিইউসি অনুমোদিত এই ইউনিয়ন পাঁচ দফা দাবিতে ৮ আগস্ট থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের দ্বারভাঙা ভবনে অনশনে বসে৷ ইউনিয়নের সম্পাদক শুভেন্দু মুখার্জী এবং সভাপতি অরুণচন্দ্র দাস বলেন, ১২ বছরের পুরনো বেতনক্রমে আমাদের কাজ করতে হচ্ছে৷ চূড়ান্ত মূল্যবৃদ্ধি সত্ত্বেও বেতন বাড়ানো হয়নি৷ ২০১৬ সালের ১ জুলাই থেকে প্রাপ্য ১০ শতাংশ ভাতাও আমাদের দেওয়া হয়নি৷ এই বঞ্চনার প্রতিবাদে দীর্ঘদিন ধরে শান্তিপূর্ণ গণতান্ত্রিক পদ্ধতিতে আন্দোলন করলেও কর্তৃপক্ষ কোনও ব্যবস্থা নেয়নি৷ এই অবস্থায় আমরা অনশনে বসতে বাধ্য হই৷ ইউনিয়নের দাবি– (১) রাজ্য বেতন কমিশনের সুপারিশ অনুযায়ী রাজ্য সরকারি কর্মীদের সাথে বিশ্ববিদ্যালয় কর্মচারীদেরও নতুন বেতন চালু করতে হবে, (২) ২০১৬ সালের ১ জুলাই থেকে প্রাপ্য বকেয়া ১০ শতাংশ অন্তর্বর্তী ভাতা অবিলম্বে দিতে হবে, (৩) সংরক্ষণ নীতি মেনে এবং আপডেটেড ১০০ পয়েন্ট রোস্টার ওয়েবসাইটে প্রকাশ করে দীর্ঘদিন বকেয়া পড়ে থাকা কোয়ালিফায়েড পুলের বকেয়া পদোন্নতি বর্ষভিত্তিক সংরক্ষিত পদের হিসাবে অবিলম্বে কার্যকর করতে হবে, (৪) অবিলম্বে আপডেটেড ১০০ পয়েন্ট রোস্টার ওয়েবসাইটে প্রকাশ করতে হবে এবং সংরক্ষণ নীতি মেনে ব্যাকলগ আগে পূরণ করে তবেই নতুন নিয়োগের বিজ্ঞাপন দিতে হবে, (৫) অবিলম্বে কমপ্যাশনেট গ্রাউন্ডে চাকরিপ্রার্থীদের শূন্যপদে নিয়োগ করতে হবে৷

কোন কোন দাবি মেনে নিয়েছেন উপাচার্য?  ১০০ পয়েন্ট রোস্টার প্রকাশ ও তদনুযায়ী বকেয়া পদোন্নতি দেওয়ার লিখিত নির্দেশ দেওয়া হয়েছে৷ বেতন সংশোধনের ক্ষেত্রে শীঘ্রই সিন্ডিকেটে আলোচনা করে রাজ্য সরকারের কাছে সুপারিশ পাঠানোর প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়েছে৷ এই অনশন আন্দোলন বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্মচারীদের মধ্যে অভূতপূর্ব সাড়া ফেলেছে৷ অনশনের তৃতীয় দিনে প্রবীণ কর্মী গোবিন্দ গোস্বামী গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়েন৷ যাঁরা জীবন বিপন্ন করে এই আন্দোলনের মধ্য দিয়ে সাফল্য ছিনিয়ে নিলেন সকলকেই সংগঠনের পক্ষ থেকে সংগ্রামী অভিনন্দন জানানো হয়েছে৷

এই আন্দোলনের সমর্থনে এসে বক্তব্য রাখেন এসইউসিআই (সি)–র প্রাক্তন সাংসদ ডাঃ তরুণ মণ্ডল, প্রাক্তন বিধায়ক অধ্যাপক তরুণ নস্কর এবং বুদ্ধিজীবী মঞ্চের অন্যতম সম্পাদক দিলীপ চক্রবর্তী৷ ডিএসও কর্মচারীদের এই আন্দোলনকে সংগ্রামী অভিনন্দন জানিয়েছে৷

(৭১ বর্ষ ৩ সংখ্যা ১৭ আগস্ট, ২০১৮)