Breaking News
Home / অন্য রাজ্যের খবর / আদিবাসী ও বনবাসীদের অধিকার হরণের প্রতিবাদে রাষ্ট্রপতিকে স্মারকলিপি

আদিবাসী ও বনবাসীদের অধিকার হরণের প্রতিবাদে রাষ্ট্রপতিকে স্মারকলিপি

১৩ ফেব্রুয়ারি সুপ্রিম কোর্ট যে রায় দিয়েছে, তার ফলে হরিয়ানার রোহতক জেলায় কয়েক লক্ষ আদিবাসী ও বনবাসী ভিটেমাটি থেকে উচ্ছেদের সম্মুখীন হতে চলেছেন৷ তাঁদের অধিকার রক্ষার্থে ৫ জুলাই রাষ্ট্রপতির উদ্দেশে স্মারকলিপি দেওয়া হল এসইউসিআই(সি)–র রোহতক জেলা কমিটির পক্ষ থেকে৷

দলের জেলা সম্পাদক কমরেড হরিশ কুমার বলেন, ‘‘স্বাধীনতার আগে ভারতে জমিদার–মহাজন–ঠিকাদার-পুলিশ এবং ইংরেজ সরকারের অকথ্য অত্যাচারের বিরুদ্ধে লাগাতার বীরত্বপূর্ণ সংগ্রাম করেছেন আদিবাসী জনগণ৷  ছোটনাগপুরে সাঁওতাল বিদ্রোহ (১৮৫০–’৫৭) এবং মুণ্ডা বিদ্রোহের (১৮৯৫–১৯০০) অত্যন্ত তাৎপর্যপূর্ণ ভূমিকা তুলে ধরেন তিনি৷  তিনি বলেন, ‘‘ছোটনাগপুর টেনেন্সি অ্যাক্ট এবং সাঁওতাল পরগণা টেনেন্সি অ্যাক্ট সংশোধন করার নামে আদিবাসীদের অধিকার হরণের অপচেষ্টা এখনও বাতিল হয়নি৷ আদিবাসীদের উচ্ছেদ করার জন্য অতিমাত্রায় সক্রিয় হয়ে উঠেছে বিজেপি সরকার৷’’

স্মারকলিপিতে বলা হয়েছে, ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ তারিখে দেওয়া সুপ্রিম কোর্টের একতরফা রায় বাতিল করা হোক এবং এজন্য কেন্দ্রীয় সরকার কার্যকরী পদক্ষেপ করুক৷ দ্বিতীয়ত, ‘ছোটনাগপুর টেনেন্সি অ্যাক্ট’ এবং ‘সাঁওতাল পরগণা টেনেন্সি অ্যাক্ট’ সংশোধন করার সরকারি প্রস্তাব অবিলম্বে বাতিল করা হোক৷ তৃতীয়ত, ‘ফরেস্ট রাইটস্ অ্যাক্ট –২০০৬’ এবং ‘পঞ্চায়েত (এক্সটেনশন টু সিডিউলড্ এরিয়াজ) অ্যাক্ট –১৯৯৬’ কার্যকরী ভাবে প্রয়োগ করা হোক৷ চতুর্থত, অদিবাসী–বনবাসী স্বার্থবিরোধী সমস্ত কার্যকলাপ বন্ধ হোক৷ পঞ্চমত, গ্রামসংলগ্ন এলাকায় গ্রামসভার অধিকারগুলিতে সরকারি বা প্রশাসনিক হস্তক্ষেপ বন্ধ হোক৷

(গণদাবী : ৭১ বর্ষ ৪৮ সংখ্যা)