Breaking News
Home / অন্য রাজ্যের খবর / ‘আখের দাম চাই’ দাবি মুজফফরনগরে হিন্দু–মুসলিম চাষিদের ঐক্যবদ্ধ করেছে

‘আখের দাম চাই’ দাবি মুজফফরনগরে হিন্দু–মুসলিম চাষিদের ঐক্যবদ্ধ করেছে

ছ’বছর আগে উত্তরপ্রদেশের মুজফফরনগরে মুসলিম এবং হিন্দু জাঠ সম্প্রদায়ের মধ্যে দাঙ্গার আগুন জ্বালিয়ে  ভোটে জিতেছিল বিজেপি৷ দাঙ্গার সে ক্ষত পুরোপুরি শুকায়নি৷ এখনও সে অঞ্চলের মানুষ আতঙ্কে ঘুমোতে পারে না৷ এই বুঝি জ্বলে উঠল বাড়ি– দুঃস্বপ্নে ভেঙে যায় ঘুম৷ মানুষকে সন্ত্রস্ত করে সেবার বিজেপি ভোটে জিতলেও এবার পরিস্থিতি ভিন্ন৷ এবার হিন্দু এবং মুসলিম সম্প্রদায়ের চাষিরা ঐক্যবদ্ধ৷

কীসের ভিত্তিতে? চিনিকল মালিকদের লাগাতার শোষণ–বঞ্চনা দুই সম্প্রদায়ের আখ চাষিদের মিলিয়ে দিয়েছে৷ এক কৃষক নেতার কথায়, ‘‘গত বছর প্রতিদিন গড়ে ৩০০ টাকা প্রতি কুইন্টাল হিসাবে আমাদের জেলা থেকে ২৬ কোটি টাকার আখ যেত চিনি কলগুলিতে৷ তার বিনিময়ে মাসে এক কোটি টাকাও আমরা পেতাম না৷ দিনের পর দিন বকেয়া রয়েছে টাকা৷ বারবার কাকুতি–মিনতি করওে কোনও ফল হয়নি’’৷ ক্ষুব্ধ কৃষকদের বক্তব্য, মাত্র ১৫০ কিলোমিটার দূরে দিল্লিতে রয়েছেন কৃষিমন্ত্রী৷ তিনি একবারও আসার সময় পাননি৷ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ভোটের জন্য উত্তরপ্রদেশে এলেও আখচাষিদের এই সমস্যা নিয়ে একটি কথাও বলেননি৷ কারণ চিনিকল মালিকরা বিজেপিকে মোটা টাকার ফান্ড জোগায়৷ তাই আখচাষিদের যত সর্বনাশই তারা করুক বিজেপি চটাতে চায় না তাদের৷

এই অবস্থায় হিন্দু–মুসলিম উভয় অংশের চাষিরা অভিজ্ঞতায় দেখেছেন, আখের ন্যায্য দাম পেতে হলে, কোটি কোটি টাকার বকেয়া আদায় করতে হলে আন্দোলন ছাড়া পথ নেই৷ আর সেই আন্দোলনের জন্য চাই ধর্মবর্ণ নির্বিশেষে সব চাষির ঐক্য৷ যাঁরা বলেন হিন্দু–মুসলিম ঐক্য অসম্ভব– এই ঘটনা তাদের দেখাবে যে এই ঐক্য সম্ভব৷ ছ’বছর আগে মুজফফরনগরে যে গ্রামবাসীরা একে অন্যের বিরুদ্ধে অস্ত্র ধরেছিলেন, সেই মুসলিম ও জাঠেদের পারস্পরিক শত্রুতা ভুলে বন্ধু করে দিয়েছে চিনিকল মালিকদের বেপরোয়া শোষণ৷

(গণদাবী : ৭১ বর্ষ ৩৪ সংখ্যা)